১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

বহিস্কার হলেন ডুলিপাড়া ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক শামিম

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০২১

ফেইসবুক শেয়ার করুন

শামিম আহমদ এই নামে কেউই চিনে না তাকে,তবে এলাকা জুড়ে রয়েছে তার অপর আরেকটি নাম নেউল শামিম.ভোটার কার্ড আর বর্তমানে তিনি যে নাম ব্যবহার করছেন তারও কোনো মিল নেই,কিন্তু তার গাড়িতে লেখা তৃতীয় আরেকটি নাম হচ্ছে এস এম শামিম আহমদ

রসুলপুর বাজার (ডুলিপাড়া) ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির ২০১৮ এর নির্বাচনে প্রথমবারের মতো সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়ে ব্যবসায়ীদের ভোটে জয়লাভ করেন শামিম আহমদ.তবে এখন ব্যবসায়ীদের জন্যই শামিম আহমদ নামটাই একটা আতঙ্ক.ব্যবসায়ীদের সাথে নানা ধরনের ঝামেলা এখন হয়ে উঠেছে শামিমের দৈনন্দিন কাজ.

নেউল শামিম আহমদ নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডে জড়িত থাকার কারনে বারবার প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে রসুলপুর বাজার (ডুলিপাড়া) ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির অন্যান্য সকল সদস্যরা

প্রথম মামলার সাথে যুক্ত হয়েছিলেন ১৬ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষন করে.১৬ বছরের এক কিশোরিকে চিড়া ভাজা খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ধর্ষন করেন নেউল শামিম.ধর্ষনের সময় কিশোরীর চিতকারে গ্রামবাসী ছুটে আসলে পালিয়ে যান তিনি.পরে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে একটি ধর্ষন মামলা করেন

২০১৮ এর জাতীয় নির্বাচনের সময় কাদিপুরের ৯নং ওয়ার্ডে ককটেল বিস্ফোরণ করিয়েছিলেন নেউল শামিম.মিথ্যে মামলায় অনেককে ফাসানোর হুমকি দিয়েছিলেন এবং ডুলিপাড়া বাজারে নৌকা মার্কার অফিস ভাংচুর করিয়েছিলেন.কিন্তু চৌধুরী বাজারের পুলিশের উপরে হামলার অভিযোগে অবশেষে গ্রেফতার হতে হয় নেউল শামিমকে

সম্প্রতি কিছুদিন আগে কৌলা এলাকার ব্রয়লারের পাশে জুনুর আহমদ জুনেদ (৩৭) এর বাসায় ডাকাতি হয়,পরদিনই জুনুর আহমদ নিজে বাদী হয়ে নেউল শামিম সহ আরো কয়েকজনকে আসামি করে একটি ডাকাতি মামলা করেন.জুনুর আহমদ আরও বলেন,তিনি ডাকাতির সময় ডাকাত সদস্যদের মধ্যে নেউল শামিমকেও দেখেতে পান,এবং এই ডাকাতিটা পুর্বপরিকল্পিত ও পুরনো শত্রুতা মেটানোর জন্যই করা হয়েছে.বর্তমানে এই মামলায় নেউল শামিম ও ডাকাত সদস্যদের বাকিরা জামিনে আছেন

ফ্রেব্রুয়ারী মাসে এক মহিলা তার সন্তানের বাবা হিসেবে নেউল শামিমের নাম উল্লেখ করেন.পরে ঘটনাটি এলাকার মধ্যে ছড়িয়ে পরলে এলাকাবাসীর চাপের সম্মুখীন হয়ে ওই মহিলাকে বিয়ে করেন নেউল শামিম এবং সেই সন্তানকে নিজের সন্তান বলেছেন তিনি.এছাড়াও নেউল শামিমের প্রথম স্ত্রীর ৫ সন্তান রয়েছে এবং বর্তমানে দ্বিতীয় স্ত্রীর ১ সন্তান

কিছুদিন আগে নেউল শামিম তার গাড়ির হেল্পার তানভীর মিয়ার ন্যাজ্য মজুরি দিতে অস্বীকার করেন,তানভীর মিয়া (১৫) যখন নিজের পাওনা টাকা পাওয়ার জন্য নেউল শামিমের কাছে দ্বিতীয় বার যান- তখন নেউল শামিম তাকে একাধারে কিল-ঘুষি-লাথি মারতে থাকেন.পরে ডুলিপাড়া বাজারের ব্যবসায়ীরা তানভীর মিয়াকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান,পরে ঘটনাটি ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির মাধ্যমে মিমাংসা করা হয়

বিগত দুই সপ্তাহ আগে মেঘনা ব্রিক্স এর স্বত্তাধীকারী হাসান আহমদ পাওনা টাকা আদায়ের জন্য নেউল শামিমের গাড়ি জব্দ করেন,জব্দ করার পর পাওনা টাকা পরিশোধ করে গাড়ি ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্যেও বলেন হাসান আহমদ.কিন্তু নেউল শামিম থানায় গিয়ে তার গাড়ি চুরি হয়েছে বলে মামলা করে দেন,এবং গাড়িটা মেঘনা ব্রিকস এ আছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ নিয়ে সেখানে হাজির হোন.কিন্তু মেঘনা ব্রিকস এর সিসিটিভি ক্যামেরায় দেখা যায় নেউল শামিমের হেল্পার নিজেই গাড়ি চালিয়ে ভিতরে ঢুকার পর গাড়িটা পাওনা টাকা আদায়ের জন্যই জব্দ করা হয়

এরকম আরো নানা বিতর্কিত ঘটনার জন্য রসুলপুর বাজার (ডুলিপাড়া) ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি- আজিজুর রহমান শামীম তাকে সাময়িক ভাবে সকল কার্যক্রম থেকে নেউল শামিমকে অব্যাহতি দেন.এবং গতকাল ০৯-০৪-২১ তারিখে সকল ব্যবসায়ী ও জনগণের মতামতের ভিত্তিতে বহিষ্কার ঘোষনা দেন নির্বাচন কমিশনের সভাপতি- শফিউল আলম ইউনুছ মহালদার ও সাধারণ সম্পাদক- বদরুল ইসলাম বদর সহ ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি- আজিজুর রহমান শামীম

664 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন