১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

কুলাউড়ায় গৃহবধূ মুন্নি হত্যা, ৬ মাস পর পলাতক স্বামী পুলিশের খাঁচায়

আপডেট: ডিসেম্বর ২২, ২০২০

ফেইসবুক শেয়ার করুন

এস আর অনি চৌধুরী :: কুলাউড়া উপজেলার কুলাউড়া গ্রাম এলাকায় গৃহবধূ মুন্নি বেগম (২০) হত্যাকাণ্ডের প্রায় ছয়মাস পর পলাতক স্বামী নাঈম মিয়া (২৪) পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার হয়েছেন।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) গাজীপুর মহানগরীর বাসন থানা এলাকার বউ বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার নাঈম মিয়া জামালপুরের শাহজামাল মিয়ার ছেলে।

থানা সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদেক কাওসার দস্তগীর ও কুলাউড়া থানার ওসি বিনয় ভূষণ রায়ের নির্দেশনায় ওসি (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম এবং এসআই আব্দুর রহিমসহ গাজীপুর মহানগরীর বাসন থানা পুলিশ যৌথ অভিযানে তাকে গ্রেপ্তার করে। স্থানীয়দের সহযোগিতা ও তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে টানা দুই দিন বাসন থানা এলাকায় পুলিশি অভিযানের পর বউ বাজার এলাকা থেকে ধরা পড়ে মুন্নি হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি নাঈম মিয়া।

মামলার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুলাউড়া গ্রাম এলাকার বাসিন্দা নাঈম ও মুন্নির মধ্যে পারিবারিক কলহের জেরে প্রায়ই ঝগড়া হতো। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৮ জুলাই রাত ১০টার দিকে তাদের মধ্যে ঝগড়া হলে স্বামী নাঈম মিয়া মুন্নিকে মারধর করেন। এতে মুন্নি বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান।

পরে স্ত্রীর লাশ বিবস্ত্র করে ঘরের ভেতরে রেখে দরজা বাইরে থেকে তালা দিয়ে পালিয়ে যায় স্বামী নাঈম মিয়া। সর্বশেষ সোমবার পুলিশি তৎপরতায় গ্রেপ্তার হন তিনি।

গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার ওসি (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম এই প্রতিবেদকে জানান, গৃহবধূ মুন্নি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পলাতক আসামি ও মুন্নির স্বামী নাঈম মিয়াকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) তাকে মৌলভীবাজার কোর্টে সোপর্দ করা হয়েছে।

328 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন