১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

বঙ্গবন্ধুর দুর্নীতিমুক্ত ও শোষনহীন সমাজ গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে—এমপি সুলতান মনসুর

আপডেট: ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯

ফেইসবুক শেয়ার করুন

অনি চৌধুরী ঃ কুলাউড়া উপজেলায় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ১৬ ডিসেম্বর সোমবার মহান বিজয় দিবস পালন করা হয়েছে। বিজয় দিবস পালনে ঐদিন ভোরে কুলাউড়া স্বাধীনতা সৌধে এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ,উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি,জাসদ,সিপিবি,কুলাউড়া প্রেসক্লাব,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্টান,সামাজিক সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করে দিবসের কর্মসুচী শুরু করে।
পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে কুলাউড়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এনসি স্কুল মাঠে সকাল ৮-৩০ মিঃ উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম সফি আহমদ সলমান আনুষ্টানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও কুচকাওয়াজ অনুষ্টানে সালাম গ্রহন করেন। কুলাউড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সেলিনা ইয়াসমিনের সঞ্চলনায় সালাম গ্রহন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ,ইউএনও এটিএম ফরহাদ চৌধুরী,ওসি মোঃ ইয়ারদৌস হাসান। অনুষ্টানে পুলিশ,আনসার ভিডিপি,ফায়ার সার্ভিস,বিএনসিসি,স্কাউটস, গার্লসগাইডসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানের ছাত্র-ছাত্রীরা কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লেতে অংশ গ্রহন করে।
বেলা সাড়ে ১১টায় স্বাধীনতা সৌধ প্রাঙ্গনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও কুলাউড়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা নুরুল মাহমুদ ভুইয়ার পরিচালনায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সম্বর্ধনা ও জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারন ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার শীর্ষক সভায় এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ নিহত বীর শ্রেষ্ট মুক্তিযোদ্ধাদের স্বরন করে তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বলেন আজকের দিনে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন দুর্নীতিমুক্ত ও শোষনহীন সমাজ গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি বলেন বিগত ৯৬ সালে শেখ হাসিনার আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে আমি এমপি থাকাকালে জাতীয় সংসদে ১ম মুক্তিযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় সম্মানসহ জাতীয় মর্যাদা দেয়া হয়েছিল। এছাড়া কুলাউড়ার মুক্তিযোদ্ধাদের অফিস আমি স্থাপন করে দিয়েছিলাম যেখানে আজ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মান করা হয়েছে। সুলতান মনসুর বলেন এবারের নির্বাচনে আপনাদের ভোটে পুনরায় এমপি নির্বাচিত হয়ে গত ৭ মার্চ সংসদে যোগ দিয়ে সংসদ নেত্রীর কাছে জয়বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু জাতীয় শ্লোগানের দাবী জানিয়েছিলাম যা আজ জাতীয় শ্লোগানের স্বীকৃতি পেয়েছে। তিনি কুলাউড়াকে আধুনিক শহর বিনির্মানে সর্বমহলের সহযোহিতা কামনা করেন।
অনুষ্টানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (সাবেক) সুশীল চন্দ্র দে। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি আব্দুল মতিন,উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম সফি আহমদ সলমান,উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম রেনু,পৌর মেয়র শফি আলম ইউনুছ,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওঃ ফজলুল হক খান সাহেদ,ওসি ইয়ারদৌস হাসান,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল হক,জাসদ সভাপতি মইনুল ইসলাম শামীম, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী,মুক্তিযোদ্ধা নেতা মাসুক আহমদ,রজব আলী ও আয়ুব আলী,আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান জেলা সম্পাদক নবাব আলী সজ্জাদ খান, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান উপজেলা কমান্ড সম্পাদক সালাহ উদ্দিন। এছাড়া অনুষ্টানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভুমি) নাজরাতুন নাঈম খান,নারী নেত্রী নেহার বেগম,পৌর আ’লীগ সম্পাদক গৌরা দে, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সম্পাদক মোঃ খালেদ পারভেজ বখশ,জাপা নেতা মবশি^র আলী,স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি এনামুল হক মিফতা,সম্পাদক এহসান আহমদ টিপু ও সরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ প্রমুখ। অনুষ্টানে উপজেলা নির্বাচন অফিসের আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্ট কার্ড বিতরন করেন প্রধান অতিথি এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ। অনুষ্টানে উপজেলার বিভিন্ন মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে সম্মানী ভাতা প্রদান এবং ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

727 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন