২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, বুধবার

কুলাউড়ায় রবীন্দ্রনাথের শত বছর পূর্তি উদযাপন পরিষদের সেমিনার। রবীন্দ্র নাথের বিশাল প্রতিভা বর্তমান প্রজম্মের মনন ও জীবন মানকে উন্নত করবে —–আবুল মাল আব্দুল মুহিত

আপডেট: নভেম্বর ৫, ২০১৯

ফেইসবুক শেয়ার করুন

অনি চৌধুরীঃ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কুলাউড়ায় আগমনের ঐতিহাসিক শত বছর পুর্তির দিনব্যাপী ‘রবিরাগ’ অনুষ্টানে সোমবার বিকেলে ‘রবীন্দ্র সাহিত্যে সিলেটের ব্যাক্তিঅস্মিতার প্রভাব’ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক অর্থ মন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন রবীন্দ্র নাথের বিশাল প্রতিভাকে বর্তমান প্রজম্মের কাছে পৌছে দিলে তাদের মনন ও জীবন মানকে উন্নত করবে। রবীন্দ্রনাথের জ্ঞান ভান্ডার অনুধাবন করলে মেধার বিকাশ ঘটাতে পারবে। তিনি বলেন জনসেবা থেকে অবসর নেয়ার পর সিলেটে রবীন্দ্র নাথের আগমনের শতবর্ষ উদযাপনের উদ্দোগ নিয়েছেন। এরই একটি অংশ হচ্ছে ৪ নভেম্বর রবি ঠাকুরের কুলাউড়ায় রাত্রি যাপনের স্বরন অনুষ্টান। কুলাউড়ায় রবীন্দ্র শতবর্ষ উদযাপন দেখে অনেক ভালো লেগেছে।
কুলাউড়া উদযাপন পরিষদের আয়োজনে শর্হস্থ স্বাধীনতা সৌধ কমপ্লেক্সে উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক অবসরপ্রাপ্ত অতিঃ সচিব,ঢাকাস্থ কুলাউড়া উপজেলা সমিতির সভাপতি,বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রউফ এর সভাপতিত্বে ও ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা বিভাগের প্রধান রুপা চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় সেমিনারে ‘রবীন্দ্র সাহিত্যে সিলেটের ব্যাক্তিঅস্মিতার প্রভাব’ মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট রবীন্দ্র গবেষক অধ্যাপক নৃপেন্দ্রলাল দাশ। আলোচনায় অংশ নেন সিলেট মদন মোহন বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ (অবঃ) ড.আবুল ফতেহ ফাত্তাহ,সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটির ইংরেজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক প্রণব কান্তি দেব ও সিলেট উদিচীর সভাপতি এনায়েত হাসান মানিক।
শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা সদর আসনের এমপি মোঃ নেছার আহমদ,মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আজিজুর রহমান,সিলেট সিটি মেয়র মোঃ আরিফুল হক চৌধুরী,মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন,মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোঃ ফারুক আহমদ পিপিএম বার ও উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব কুলাউড়া সরকারী কলেজের উপাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান। পরে অনুষ্টানে রবীন্দ্রনাথের উপর প্রকাশিত একটি স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনুষ্টিত চিত্রাংকন,রবীন্দ্র সংগীত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউএনও এটিএম ফরহাদ চৌধুরী, কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সাদেক কাওসার দস্তগীর,সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল,কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি,সাবেক এমপি মোঃ আব্দুল মতিন,সাধারন সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম রেনু,কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেহা ফেরদৌস চৌধুরী পপি, উদযাপন পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক,কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী, যুগ্ম-সদস্য সচিব বরমচাল স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক সিএম জয়নাল আবেদীন,উদযাপন পরিষদের সদস্য এডঃ এটিএম মান্নান,গৌরা দে,মইনুল ইসলাম শামীম,রেদওয়ান খান,আব্দুর রব মাহবুব,প্রভাষক মাজহারুল ইসলাম,প্রভাষক খালিক উদ্দিন,সফিক মিয়া আফিয়ান,লুৎফুর রহমান,শামীম আহমদ,সামস উদ্দিন বাবু,প্রবাসী কমিউনিটি লিডার মোস্তফা আব্দুল মালিক ও সিরাজ উদ্দিন আহমদ সোহাগ, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক মোঃ খালেদ পারভেজ বখশ প্রমুখ।


সেমিনার শেষে সন্ধার পর ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের নৃত্যকলা বিভাগের চেয়ারপার্সন প্রখ্যাত রবীন্দ্র কন্ঠ শিল্পী অধ্যাপক রেজওয়ানা চৌধুরী বণ্যার একক রবীন্দ্র সংগীত ও স্থানীয় শিল্পীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্টান এবং নৃত্যনাট্য ‘ঋতুরং’ এর পরিবেশনায় ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের নৃত্যকলা বিভাগের প্রভাষক এগনেস ব্যাচেল প্যারিস ও প্রভাষক মনিরা পারভীনসহ স্থানীয় ও মনিপুরী নৃত্য পরিবেশন করা হয়। অনুষ্টানে উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ,বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ,শিক্ষক,সাংবাদিক,শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেনীর পেশাজীবিরা অংশ গ্রহন করেন।
উল্লেখ্য বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৯ সালের নভেম্বর মাসে ৩ দিনের সিলেট সফরে ভারতের করিমগঞ্জ থেকে ট্রেনযোগে সিলেট যাত্রাপথে কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে ৪ নভেম্বর রাত্রি যাপন করেন। কুলাউড়ার ঐতিহাসিক ৪ নভেম্বরের স্মৃতিচারনের জন্য উদযাপন পরিষদের উদ্দোগে শর্হস্থ স্বাধীনতা সৌধ কমপ্লেক্সে দিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্টানের কর্মসুচী সম্পন্ন করা হয়।

188 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Frank Dinar