২২শে জুলাই, ২০১৯ ইং, সোমবার

শিরোনাম

আরেকজন মন্ত্রী পাচ্ছে সিলেট

আপডেট: জুলাই ১২, ২০১৯

ফেইসবুক শেয়ার করুন

টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার ছয় মাস পর মন্ত্রীসভা সম্প্রসারিত করছে সরকার। প্রতিমন্ত্রী থেকে পূর্ণ মন্ত্রী হচ্ছেন সিলেট-৪ আসনের সাংসদ ইমরান আহমদ।

এতোদিন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসা ইমরান আহমদ শনিবার মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিচ্ছেন।

মন্ত্রীসভায় সিলেট বিভাগের তিনজন পূর্ণমন্ত্রী রয়েছেন। এরা হলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন, পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান এবং পরিবেশ ও বন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন। ইমরান আহমদ পূর্ণ মন্ত্রী হওয়ায় শনিবার থেকে আরেকজন নতুন মন্ত্রী পাচ্ছে সিলেট।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সচিবালয়ে ‘জেলা প্রশাসক সম্মেলন-২০১৯’ নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম মন্ত্রীসভা সম্প্রসারিত হওয়ার থবর জানান তথ্য জানান।

এর আগে মন্ত্রীসভা সম্প্রসারিত হচ্ছে বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রস্তুতি রয়েছে কি না -জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, ‘আমরা প্রস্তুত। শনিবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গভবনে মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে।’ তবে কতজন শপথ নেবেন সে বিষয়ে কিছু জানান নি মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

প্রসঙ্গত, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ পদোন্নতি পেয়ে মন্ত্রী হচ্ছেন। আর নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। তাকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। কারণ এ মন্ত্রণালয়ে কোনো মন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রী নেই।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর সরকার গঠনের ছয় মাসের মাথায় সম্প্রসারিত হচ্ছে মন্ত্রীসভা। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর গত ৭ জানুয়ারি টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। ৪৬ সদস্যের ওই মন্ত্রীসভায় ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে ছয় মন্ত্রণালয় রাখা হয়।

পরে গত ১৯ মে মন্ত্রীসভা পুনর্বিন্যাস করা হয়। তখন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়। এছাড়া ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে একই মন্ত্রণালয়ের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী করা হয়। এ মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে।

একই সঙ্গে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অধীন স্থানীয় সরকার বিভাগের মন্ত্রী করা হয় তাজুল ইসলামকে। তাকে আগে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও স্বপন ভট্টাচার্যকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। একই মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন স্বপন ভট্টাচার্য।

88 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Frank Dinar