১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

জুড়ীতে গভীর রাতে পর নারীর ঘরে কথিত সাংবাদিক অত:পর–

আপডেট: মার্চ ২৭, ২০২০

ফেইসবুক শেয়ার করুন

ডেস্ক সংবাদ:: বিরহী বেশে ঘুরাঘুরি। প্রেস লেখা ড্রেস পরিধান করে, সাংবাদিক লেখা মোটরসাইকেল নিয়ে সারাদিন ঘুরাঘুরি যার কাজ। অবশেষে সেই লোগো ধারী সাংবাদিক জনতার হাতে আটক হয়েছেন। এক সন্তানের জননীকে বিয়ে করার শর্তে স্ট্যাম্পে লিখিত দিয়ে জনতার হাত থেকে মুক্তি পেয়েছে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার কথিত সাংবাদিক জালালুর রহমান।

স্হানীয় এলাকাবাসী জানান, বিগত অনেকদিন থেকে জুড়ীর সাগরনাল ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ডহর গ্রামের এক সন্তানের জননী নাজমা আক্তারের ঘরে অবাধ যাতায়াত পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের হরিরামপুর গ্রামের খলিলুর রহমান (ভূট্রো খলিল) এর পুত্র জালালুর রহমান।
স্বামীর সাথে ঐ মহিলার পারিবারিক দ্বন্দ্বে সে তার পিত্রালয়ে থাকতেন। এমন কি স্বামীর সাথে তার মামলাও বিচারাধীন। এরই সুবাধে রাতের আধারে ঔই মহিলার বাড়িতে সে প্রায় যাতায়াত করতো ওই কথিত সাংবাদিক । এলাকাবাসী অনেক বাঁধা দিলেও সে উল্টো সাংবাদিক পরিচয়ে তাদের হুমকি দিতো। গত বৃহস্পতিবার ২৬ মার্চ রাত ৮ টার দিকে সে ঔই মহিলার বাড়িতে গিয়ে অপকর্ম করলে এলাকাবাসী তাকে হাতেনাতে ধরে উত্তম মধ্যম দেয়। পরবর্তীতে তারা সরকারি সেবা ৯৯৯ এ ফোন দিলে জুড়ী থানা পুলিশ জানায় তাকে বিয়ে করিয়ে দিতে। মহিলার স্বামীর সাথে মামলা বিচারাধীন থাকায় উপস্হিত বিয়ে না হওয়ায় মহিলার মামলা শেষে বিয়ে করার শর্তে স্ট্যাম্পে লিখিত হওয়ার পর তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

জালালুর রহমানের বিরুদ্ধে এ রকম অনেক অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। টিলাকাটার হুমকি দিয়ে টাকা আদায়, সাংবাদিক পরিচয়ে চাদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সে অনেকদিন থেকে খবরপত্র পত্রিকার জুড়ী প্রতিনিধি আবার কখনও প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদ পরিচয়ে এসব অপকর্ম করে আসছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত জালালুর রহমানের মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।#
সুত্র ঃএইবেলা

868 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন