২৩শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার

কুলাউড়ার ভাষাসৈনিক রওশন আরা বাচ্চুর চেহলাম সম্পন্ন

আপডেট: জানুয়ারি ১০, ২০২০

ফেইসবুক শেয়ার করুন

ডেক্স রিপোর্টঃ বাঙালির জাতীয় জীবনে একুশে ফেব্রুয়ারি ইতিহাসের স্মরণীয় দিনের বায়ান্নোর সেই রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায় মেয়েদের আন্দোলনের মিছিলে পুলিশের ব্যারিকেডে ভেঙে নেতৃত্বদানকারী মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার কৃতি সন্তান রওশন আরা বাচ্চুর চেহলাম অনুষ্টান শুক্রবার তার নিজ বাড়ীতে সম্পন্ন হয়েছে। বাদ জুমা কুলাউড়া উপজেলা শহরের উচলাপাড়াস্থ মরহুমার বাড়ীতে আয়োজিত চেহলাম অনুষ্টানে সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক জনতা,নেতৃবৃন্দসহ ভাষা আন্দোলন স্মৃতি রক্ষা পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মুসলেহ উদ্দিন খান মজলিস,সম্পাদক ডাঃ এম এ মুক্তাদির,মহিলা সম্পাদক মতিয়ারা চৌধুরী মিনু,দপ্তর সম্পাদক হাসানুল বান্না,সদস্য সায়মা খাতুন রিভা,চিত্র গ্রাহক রিয়াদ মাহমুদ,ঢাকা উত্তর যুব মহিলালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শিরিন আক্তার বেলী,এনজিও আপনার পাশে আমরা পরিচালক এডঃ আসিকু সামাদ উৎস,ঢাকা উত্তর জাতীয় মানবাধিকার সংস্থার সাংগঠনিক সম্পাদক এডঃ সৈয়দা ফেরদৌস আরা,ঢাকা উত্তরা ওমেন এডভোকেট এসোসিয়েশনের সদস্য এডঃ সৈয়দা ফরিদা আক্তার,রওশন আরা বাচ্চু বিশ^বিদ্যালয় বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক ও অপর ভাষা সৈনিক ছালেহা বেগমের জেষ্ট ছেলে সৈয়দ শাকিল আহাদ,মরহুমার কনিষ্ট কন্যা ফারহানা ওয়াহেদ তুনা,ভাষা সৈনিক আব্দুর রজ্জাক প্রমুখ।

উল্খ্যে ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চু গত বছরের ৩ ডিসেম্বর ৮৮ বছর বয়সে রাজধানীর ঢাকা অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তিনি ২ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাংকী রেখে যান। পরদিন ৪ ডিসেম্বর কুলাউড়া উপজেলা শহরের উচলাপাড়ায় তার নিজ বাড়ীর সম্মুখস্থ পারিবারিক গোরস্থানে তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়।

রওশন আরা বাচ্চু ১৯৩২ সালের ১৭ই ডিসেম্বর কুলাউড়া উপজেলার উছলাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাল্যকালের শিক্ষাজীবন তার উপজেলায় শেষ করে পরবর্তীতে পিরোজপুর গার্লস স্কুল থেকে ম্যাট্রিক,বরিশালের ব্রজমোহন কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ১৯৫৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে অনার্স ও পরে ইতিহাসে এমএ সম্পন্ন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দিনগুলোতেই রওশন আরা গণতান্ত্রিক প্রোগ্রেসিভ ফ্রন্টে যোগ দিয়ে ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ঐ সময়ে তিনি সলিমুল্লাহ মুসলিম হল এবং উইম্যান স্টুডেন্টস রেসিডেন্সের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার মরহুম স্বামী এস এ ওয়াহেদ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের ডাইরেক্টার ছিলেন।

20 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Frank Dinar