আগস্ট ৬, ২০১৫ ১০:৩৯ অপরাহ্ণ

৪ ছিনতাইকারীকে পুলিশে দিলো জনতা


কুলাউড়া সংবাদ : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০১৫ ॥

সিএনজি চালিত অটোরিকশার নারী যাত্রীর কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় চার ছিনতাইকারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা।

বুধবার দুপরে সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের গোলাপগঞ্জ উপজেলার রানাপিং চন্দনভাগ এলাকার তৈপুর নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃত ছিনতাইকারীরা হলেন- বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন ইসমাঈল আলীর ছেলে রিফাত আহমদ (২০), চারখাই ইউনিয়নের চারখাই গ্রামের ফয়জু মিয়ার ছেলে সাহেদ আহমদ (২০), গোলাপগঞ্জ উপজেলার আমুড়া ইউপির আমুড়া গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে রুহুল আমিন (২০) এবং আদিনাবাদ গ্রামের আজমল হুসেনের ছেলে সায়নুল আহমদ (২০)।

ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া জেসমিন আক্তার (৩৫) গোলাপগঞ্জ উপজেলার রানাপিং শেরপুর গ্রামের হারিস উদ্দিনের স্ত্রী।

জেসমিন আক্তার জানান, জমি কেনার জন্য আড়াই লাখ টাকা তার ঘরে ছিল। জমি রেজিস্ট্রি হতে কয়েক দিন দেরি হবে। এজন্য বুধবার দুপুরে টাকাগুলো তিনি ব্যাংকে জমা দেয়ার জন্য যাচ্ছিলেন। পথে ওই ছিনতাইকারীরা অটোরিকশা থামিয়ে ব্যাগে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এসময় তার চিৎকারে স্থানীয় জনতা আরেকটি অটোরিকশা নিয়ে ধাওয়া দিয়ে ছিনতাইকারীদের আটক করে। খবর পেয়ে গোলাপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে জনতা ছিনতাইকারীদের পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

এদিকে, জেসমিন আক্তার তার টাকার ব্যাগসহ চার ছিনতাইকারীকে জনতা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে দাবি করলেও পুলিশ বলছে ব্যাগে টাকা পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিনয় কুমার  বলেন, ‘টাকার ব্যাগ পাওয়া গেলেও মাত্র সাড়ে ২ হাজার ৯০০ টাকা পাওয়া গেছে।

ছিনতাইকারীদের আটকের সময় জনতার সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়েছে জানিয়ে বিনয় কুমার বলেন, ‘এসময় টাকাগুলো খোয়া যেতে পারে।’

গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম ফজলুল হক শিবলি এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে  বলেন, ‘সজল নামে এক ছিনতাইকারী পালিয়ে গেছে। সে টাকাগুলো নিয়ে পালিয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

 

নিউজটি শেয়ার করুন

124 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ