আগস্ট ২৬, ২০১৫ ৩:৪৬ অপরাহ্ণ

পুরুষের নবজাতক দেখতে উৎসুক জনতার ভিড়!


কুলাউড়া সংবাদ : বুধবার, ২৬ আগস্ট ২০১৫॥ পুরুষের সন্তান প্রসব করার খবরে উৎসুক জনতা নবজাতককে দেখতে হাসপাতালে ভিড় জমিয়েছে। কি ভড়কে গেলেন তো?

মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উৎসুক জনতার ভিড়ের কমতি ছিল না বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

পরনে শার্ট-প্যান্ট, দেখতে কিশোর। মাথার চুল ছেলেদের মতো করেই ছাঁটা। বয়স ১৫ বছর। তবে নাম তার নাজমা আক্তার!

পেটের দায়ে ২ বছর ধরে নিজের নাম গোপন করে ছদ্মবেশে রিকশা-ভ্যান চালাতে শুরু করে সে। সবার কাছে পরিচিতি পায় নাজমুল ইসলাম নামে।

নাজমুল নামে পরিচিত ‘নাজমা’ বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার খোন্তাকাটা গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের মেয়ে।

যে জীবন সংগ্রামে জিততে নাজমা থেকে নাজমুল হয় সে, সেই সমাজ ব্যবস্থায় নিরাপদে দরিদ্রতা আর জয় করা হলো না তার। লম্পটের লালসার শিকার হয়ে জীবন সংগ্রামে পরাজিত নাজমা এখন কুমারী মা।

মঙ্গলবার ভোরে বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি কন্যা সন্তান জন্ম দিয়েছে সে।

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি নাজমা বলেন, চার বছর বয়সে আমার বাবা মারা যায়। মা মরিয়ম বেগম বছর পাঁচেক আগে অন্যত্র বিয়ে করে আমাকে ছেড়ে চলে যায়। সব হারিয়ে আমার আশ্রয় হয় বৃদ্ধা দাদির কাছে। এরপর গত এক বছর ধরে জীবিকার তাগিদে রিকশা-ভ্যান চালানোর কঠিন সংগ্রামে নেমে পড়ি।

নাজমা আরও বলেন, মানুষরূপী পশুদের হাত থেকে বাঁচতে আমি পুরুষের ছদ্মবেশ ধারণ করি। নিজের নাম পাল্টে নাজমুল ইসলাম রাখি। তার পরও নিজেকে রক্ষা করতে পারেনি, বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

নাজমা বলেন, শরণখোলা উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারের হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী রফিকুলের লালসার শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এরপর তাকে একথা বহুবার বলা হলেও রফিকুল আমাকে গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানায়।

সোমবার সন্ধ্যায় প্রসব বেদনা নিয়ে হাসপাতালে ছুটে আসে নাজমা। ভোরে ফুটফুটে একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয় সে।

এলাকাবাসী জানায়, পেটের দায়ে বছর দুই আগে নিজের নাম গোপন করে নাজমুল ইসলাম সেজে ছেলের ছদ্মবেশে রিকশা-ভ্যান চালাতে শুরু করে নাজমা। মঙ্গলবার ভোরে বাগেরহাটের শরণখোলা হাসপাতালে সে একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়।

এতে এলাকায় খবর ছড়িয়ে পড়ে পুরুষের পেটে সন্তান হয়েছে। এ খবরে সকাল থেকে দূর-দূরান্তের শত শত মানুষ ছুটে আসতে শুরু করে হাসপাতালে।

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার সমাদ্দার জানান, নাজমা ও তার মেয়ে সুস্থ রয়েছে। পুরুষের সন্তান হয়েছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ায় সকাল থেকে শত শত মানুষ হাসপাতালে ভিড় করছে। এখন ভিড় সামলাতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এদিকে এঘটনায় লম্পট রফিকুল ইসলাম তালুকদারকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলা সদরের রায়েন্দা বাজারের হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী। রফিকুল উপজেলা সদরের মৃত শামছু তালুকদারের ছেলে।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, নাজমার স্বীকারোক্তি মতে ওই রাতেই থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে মামলার আসামি লম্পট রফিকুলকে গ্রেফতার করে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হয়েছে।
সূত্র : বাংলানিউজ

নিউজটি শেয়ার করুন

192 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ