মার্চ ২৭, ২০১৮ ৮:৩০ অপরাহ্ণ

সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত


ডেক্স রিপোর্টঃ সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার মাধ্যমে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। কলেজে সকাল সাড়ে ৮ টায় জাতীয় সংগীত ও পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের আনুষ্টানিকতা শুরু করা হয়। উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল করিমের নেতৃত্বে সকাল ৯ টায় এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ক্যাম্পাস থেকে বের করে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করে।
সকাল ১১টায় উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে ও মেডিকেল কলেজের ১১ তম ব্যাচের ছাত্রী সাইকা ইসলাম জান্নাতের পরিচালনায় মেডিকেল কলেজের লেকচার গ্যালারীতে আলোচনা সভায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. শরদিন্দু ভট্রাচার্য্য বলেন, ৪৭ বছর পূর্বে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ ভয়াল কালো রাতে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী নিরস্ত্র বাঙালীর উপর ঝাঁিপয়ে পড়ে একদিনে ৪০-৫০ হাজার নিরিহ মানুষকে হত্যা করে। ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের ফলে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। স্বাধীনতা অর্জন না হলে আমরা আজো উন্নত হতে পারতাম না। পরাধীন হয়ে কোন জাতি কখনো উন্নত রাস্ট্রে পরিনত হতে পারে নি। আমরা যেমন স্বাধীনতা অর্জন করে বিশ্বে মাথা উচু করে দাঁড়িয়ে আছি। আমাদের এ স্বাধীনতা রক্ষা করে টিকে থাকতে হবে। দেশের মানুষের মনে দেশপ্রেম জাগ্রত করতে হবে। নতুন প্রজš§কে দেশের স্বাধীনতার ইতিহাস জানাতে হবে। নতুন প্রজš§কে দেশের ইতিহাস নিয়ে গবেষনা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, ১৯৫২ সালে আমরা বাংলা ভাষাকে রাস্ট্র ভাষা করার দাবীতে আন্দোলন করেছিলাম। বাংলা আমাদের রাস্ট্রভাষা হয়েছে। যদি ৭১ এ দেশ স্বাধীন না হতো তাহলে বাংলাকে আমাদের মাতৃভাষা ধরে রাখা সম্ভব হতো না। আজ বাংলা ভাষা আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে। এটিই বাঙালী হিসেবে আমাদের সার্থকতা।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ডা. ফজলুর রহিম কায়সার, হলি সিলেট হোল্ডিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. শাহ মো. আব্দুল আহাদ, উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক লে. কর্ণেল (অবঃ) সৈয়দ মো. আবতহী, অধ্যাপক ডা. মৃগেন কুমার দাশ চৌধুরী ,অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম ভূইয়া, উইমেন্স নাসিং ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ ড. নীলিমা মজিদ, সহকারী অধ্যাপক ডা. হোসাইন আহমদ, ডা. মো. ইশফাক জামান সজিব। ছাত্রীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন তোহরা নাসরিন ভাষা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কন্সালটেন্ট ডা. হিমাংশু শেখর দাস। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু মেখ মুজিবুর রহমানের জš§দিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ‘শিশুতোষ বঙ্গবন্ধু’ বিষয়ক রচনা প্রতিযোগীতায় ১১ তম ব্যাচের ছাত্রী সাইকা ইসলাম জান্নাত ১ম, ১৩ তম ব্যাচের ছাত্রী মহসিনা রহমান মিশু ২য় ও সাবিহাতুন রহমান ৩য় বিজয়ীকে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

255 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ