ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৬ ৬:২৯ অপরাহ্ণ

ভালোবাসা দিবসে সিলেটের আদালত পাড়ায় প্রেমিক অপহরণ


বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে পালিয়ে বিয়ে করা প্রেমিক যুগল সিলেটের আদালতে আত্মসমর্পন করতে এসে অপহৃত হয়েছেন এক আসামি। রোববার সকালে সিলেট জেলা বারের ২নং হলের সামন থেকে তাকে অপহরণ করা হয়।

সিলেট জেলা বারের আইনজীবী সাইফুল ইসলাম তালুকদার ও এভভোকেট মো. নেছার উদ্দিন জানান, সিলেটের জালালাবাদ থানার কান্দিগাঁও ইউনিয়নের সুজাতপুরের মতিউর রহমান মতিনের পুত্র আব্বাস আলীর (২৩) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে কলেজছাত্রী তাহমিনা আক্তার হেপীর (২০)।

সিলেটের বিশ্বনাথ থানার বাওনপুরের আলতাব মিয়ার মেয়ে তাহমিনা সিলেট এমসি কলেজে অধ্যয়নরত। তাহমিনা গত ২৮ জানুয়ারি প্রেমিক আব্বাসের হাত ধরে পালিয়ে যায় এবং আব্বাসকে বিয়ে করে।

এ ঘটনায় তাহমিনার পিতা আলতাব মিয়া গত ১ ফেব্রুয়ারি সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় আব্বাস আলীসহ ৪ জনকে আসামি করা হয়।

তাহমিনা ও তার প্রেমিক আব্বাস রবিবার আদালতে আত্মসমর্পন করতে যায়। এ সংবাদ পেয়ে তাহমিনার পিতা ও ভাইসহ বাদীপক্ষও আদালতপাড়ায় যায়। সকাল ১১টায় আব্বাস ও তাহমিনা তাদের আইনজীবীর সাথে দেখা করে আদালতে আত্মসমর্পনের প্রস্তুতি নেয়। এক পর্যায়ে মামলার বাদী আলতাব মিয়া ও তার স্বজনরা সিলেট জেলা বারের ২নং হলের সামন থেকে প্রেমিক আববাস আলীকে জোরপূর্বক একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়।

ঘটনাটি সিলেট জেলা বারের সভাপতি সেক্রেটারিসহ সকল মহলকে অবহিত করা হয়েছে। তাহমিনা তার স্বামীকে অপহরণ করে নেয়া হয়েছে বলে আদালতকেও লিখিতভাবে অবহিত করেছে। পরে আদালত ভিকটিম তাহমিনার জবানবন্দী গ্রহণের জন্য আদেশ দেন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ২২ ধারায় জবানবন্দীর জন্য তাহমিনাকে পুলিশের জিম্মায় রাখা হয়েছে। বিকেলে সিলেট মেট্রোপলিটন ২ আদালতে তাহমিনার জবানবন্দী গ্রহণের কথা।

এব্যাপারে সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহেল আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যস্ততার কারণে পরে কথা বলবেন বলে জানান।


error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ