জানুয়ারি ২০, ২০১৬ ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ

গ্রুপ বদল করায় প্রাণ দিতো হলো ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রলীগ কর্মীকে


বাঁচানাে গেলো না সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রলীগ কর্মী কাজী হাবিবকে। সকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নিজ দলের প্রতিপক্ষ গ্রুপের হামলায় আহত হন হাবিব। রাতে নগরীর একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

ছাত্রলীগের এক গ্রুপ ছেড়ে অন্য গ্রুপে যোগ দেওয়ার কারণে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। হাবীব সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিবিএ ৪র্থ বর্ষের ছাত্র।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট আসার দু’দিন আগে আভ্যন্তরীন কোন্দলে খুন হলেন ছাত্রলীগ নেতা।

জানা যায়, কাজী হাবীব মহানগর সাধারন সম্পাদক তুষার গ্রুপের কর্মী ছিলেন। সম্প্রতি তিনি গ্রুপ বদল করে ছাত্রলীগের তেলিহাওর গ্রুপে যোগ দেন। গ্রুপ বদলের দায়ে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে হামলার শিকার হন হাবীব।

আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে নগরীর মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রাত ১১ টায় এই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

হামলার প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানান, মঙ্গলবার সকালে সাড়ে এগারোটায় নগরীরর শামীমাবাদে ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মাঠে সাগর ও সোহেলের নেতৃত্বে একদল ছাত্রলীকর্মী তার উপর হামলা চালায়। এসময় হাবিবকে ধারালো অস্ত্রদিয়ে আঘাত করে তারা। পরে আশপাশের শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

সহপাঠীরা জানান, হাবিব সম্প্রতি মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আসাদ উদ্দিন সমর্থিত গ্রুপ ছেড়ে তেলিহাওড় গ্রুপে যোগ দেয়। একারনেই আসাদ উদ্দিন সমর্থিত গ্রুপের ছাত্রলীগ কর্মীরা তার ওপর হামলা করেছে বলে দাবী হাবিবের সহপাঠীদের।

এ ব্যাপরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মুহিব ইবনে সিরাজের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।


error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ