মার্চ ২২, ২০১৬ ১১:৪৫ অপরাহ্ণ

ইউপি নির্বাচন : সিলেটে বিদ্রোহীদের কাছে ধরাশায়ী আওয়ামী লীগ


৩টিতে আ. লীগের বিদ্রোহী, ১ টিতে বিএনপির বিদ্রোহী এবং দুটি করে ইউপিতে আ. লীগ-বিএনপির প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত

কুলাউড়া সংবাদ :ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সিলেট বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। মঙ্গলবার সিলেট সদর উপেজলার নির্বাচন হওয়া ৮ টি ইউনিয়নের ৩ টিতেই বিজয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা।

এছাড়া দুটি করে ইউনিয়নে আওয়ামী ও বিএনপির প্রার্থী এবং একটিতে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী প্রচারাণ শুরুর পর থেকেই বিদ্রোহীদের নিয়ে বিপাকে পড়ে আওয়ামী লীগ। বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিলেও ঠেকানো যায় নি তাদের। গত ২০ মার্চ এনিয়ে সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকম-এ ‘সিলেটে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে বিপাকে আওয়ামী লীগ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। মঙ্গলবার রাতে পাওয়া ফলাফলেও এই প্রতিবেদনের সত্যতা পাওয়া যায়।

সিলেট সদর উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নের মধ্যে জালালাবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মনফর আলী, খাদিমপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এডভোকেট আফসর আহমদ ও টুলটিকর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম আলী হোসেন বিজয়ী হয়েছেন।

নির্বাচনে দুই ইউনিয়নে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা। এরমধ্যে কান্দিগাও ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নিজাম উদ্দিন ও মোগলগাঁও ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিরণ মিয়া বিজয়ী হন।

দুটিতে বিজয়ী হয়েছেন বিএনপি মনেনাীত প্রার্থীরাও। এরমধ্যে হাটখোলা ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী আজির উদ্দিন ও টুকেরবাজার ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী শহীদ আহমদ বিজয়ী হয়েছেন।

এছাড়া খাদিম নগর ইউনিয়নে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন বিজয়ী হন।

ভোটার ও আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতারা জানান,ইউপি নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের মধ্যেও দলাদলি ছিলো। এক পক্ষ নৌকার অবস্থা বুঝতে গিয়ে বিদ্রোহীদের পক্ষে কাজ করেছেন। খাদিমপাড়া ও টুলটিকর ইউপির ওয়ার্ড শাখার দুজন নেতা বলেন, তাঁদের দেখামতে ঠিক এই নির্বাচনের মতোই অবস্থা ছিল পৌরসভা নির্বাচনে গোলাপগঞ্জ ও কানাইঘাটে।

এ সম্পর্কে খাদিমপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আনছার মহলদার সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,

“সঠিক প্রার্থী বাছাই না করায় এমন ফল হয়েছে, জেলার নেতারা আমাদের তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের কথা আমলে নেন নি, তারা আমাদের সাথে আলাপ না করেই করেই প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছেন, যার ফলে দলীয় প্রার্থীরা ধরাশায়ী হয়েছে”

গত পৌরসভা নির্বাচনে কানাইঘাট ও গোলাপগঞ্জে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা জয়ী হন।

নিউজটি শেয়ার করুন

884 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ