এপ্রিল ৬, ২০১৬ ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ পলাতক


ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি : সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ আল হোসাইন গ্রেফতার এড়াতে পলাতক রয়েছেন। ৫ মাস ধরে চেয়ারম্যান পলাতক থাকায় উপজেলা পরিষদের আওতাধীন সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বন্ধ রয়েছে। চলামান ৩৪ প্রকল্পের সরকারি বরাদ্দকৃত টিআর কাবিখার ১২২ টন চাল নির্ধারিত সময় উত্তোলন হয়নি। ফলে এসব প্রকল্পের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। নাশকতাসহ সাইফুল্লাহর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা রয়েছে।

উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে সরকার থেকে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (সাধারণ) প্রথম পর্যায়ের ১২২ টন চাল বরাদ্দ পায়। বরাদ্দকৃত চাল উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে বণ্টন করা হলে ইউনিয়নভিত্তিক টিআর এবং কাবিখার ৩৪টি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। মামলাজনিত কারণে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফল্লাহ আল হোসাইন গ্রেফতার আতংকে আত্মগোপনে রয়েছেন। তার অনুপস্থিতিতে সরকারি বরাদ্দকৃত ১২২ টন চাল উত্তোলনের নির্ধারিত মেয়াদ ৩১ মার্চ অতিবাহিত হয়। উপজেলা পরিষদের আওতাধীন এডিপি, রাজস্ব, হাটবাজার তহবিল থেকে কোনো প্রকল্প গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

উপজেলা চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরের কারণে উপজেলা পরিষদের দুই ভাইস চেয়ারম্যান তাদের বেতন-ভাতাসহ উপজেলা পরিষদের একাধিক কর্মচারী বেতন উত্তোলন করতে পারছেন না।

এতে অনেক কর্মচারী পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাইজগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের এক ইউপি সদস্য বলেন, টিআর কাবিখা’র প্রকল্প ইউনিয়ন থেকে উপজেলায় প্রেরণের সঙ্গে সঙ্গে আমরা প্রকল্পের চাল উত্তোলনের আগেই ডিলারের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করে ফেলেছি।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আত্মগোপনে থাকায় প্রকল্পগুলো অনুমোদন হয়নি। চাল উত্তোলনের নির্ধারিত সময়ও চলে গেছে। ৫ মাস ধরে এলাকার উন্নয়ন স্থবির হয়ে পড়েছে বলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

846 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ