অক্টোবর ২১, ২০১৭ ১১:১৮ অপরাহ্ণ

কবে শেষ হবে এই দুর্ভোগ ? কুলাউড়া-বড়লেখা আঞ্চলিক মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ


কুলাউড়া সংবাদ :: কুলাউড়া-বড়লেখা-চান্দগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়কে যাত্রীদের দূর্ভোগের শেষ নেই। দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় এ সড়কের শতাধিক স্থানে ভাঙন ও গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় চরম দূর্ভোগে পড়েছে যানবাহনসহ যাত্রীরা। গত দুদিনের বৃষ্টি এ দূর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সৃষ্ট হওয়া বড় বড় গর্তে গাড়ি আটকা পড়ে প্রায় দিনই ঘন্টার পর ঘন্টা যানজট লেগেই থাকে।

 

সর্বশেষ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা) গর্তে আটকা পড়া এনা পরিবহনের বাসটি উদ্ধার করা হলেও অন্য দুটি গাড়ি উদ্ধার করতে না পারায় প্রায় ১৮ ঘন্টা থেকে বন্ধ রয়েছে যান চলাচল। ৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে শত শত গাড়ি আটকা পড়ে।

সরেজমিনে দেখা যায়, কুলাউড়া উপজেলার উত্তর কুলাউড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে শুক্রবার গভীর রাতে মালবাহী একটি ট্রাক গর্তে আটকা পড়ে। শনিবার সকালে একই স্থানে চান্দগ্রাম থেকে ঢাকাগামী এনা পরিবহন ও জালালাবাদ পরিবহনের দুটি বাস গর্তে আটকা পড়ে। যার ফলে গাড়ি চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে দু’পাশের প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা) গর্তে আটকা পড়া এনা পরিবহনের বাসটি উদ্ধার করা হলেও অন্য দুটি গাড়ি উদ্ধার করতে না পারায় বন্ধ রয়েছে যান চলাচল। তবে সিএনজি, প্রাইভেট কারগুলো বাইপাস রাস্তা দিয়ে চলাচল করলেও বড় পরিবহন ও দূর পাল্লার যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।  ফলে চরম দূর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীসাধারণ। ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পণ্যবাহী গাড়ি জুড়ি, বড়লেখা, বিয়ানীবাজার উপজেলায় যেতে পারছেনা।

এবারের ৬ মাসের অধিক স্থায়ী বন্যায় পানিতে তলিয়ে ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায় সড়কটির শতাধিক স্থান। বন্যার পানি কমলেও সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাস্তাটির কোন মেরামত কাজ করেনি। ফলে পানি নেমে যাওয়ার পর প্রায় দেড় মাস থেকে জনদূর্ভোগ লেগেই আছে।

সংস্কারের ব্যাপারে মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মিন্টু রঞ্জন দেবনাথ জানান, বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তবে এখনও কোন বরাদ্ধ আসেনি। বরাদ্ধ হলেই দ্রুত কাজ সম্পন্ন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

1177 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ