মে ৯, ২০১৬ ৮:১৭ অপরাহ্ণ

রাণভিক্ষা না চাইলে যেকোনো সময় ফাঁসি


কেন্দ্রীয় কারাগার প্রস্তুত, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও প্রস্তুত- রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি আসলেই যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামীর রায় কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

সোমবার (০৯ মে) সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা নিজামীর মৃত্যুদণ্ডের রায় কার্যকর প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘রাষ্ট্রপতির কাছে নিজামী যদি প্রাণভিক্ষা না চায়, তাহলে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পরবর্তী সব কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে।’

তাহলে নিজামীকে কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হলো কেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নিজামীকে ফাঁসির উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়নি। কারাগারে কয়েদি আনা নেয়া একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।’

এর আগে ড. এমএ. ওয়াজেদ মিয়ার ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া এবং ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিকৃতি রোধে সচেতনতা বৃদ্ধি লক্ষ্যে “সাধনা সংসদ ফাউন্ডেশন” আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ নেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এসময় ড. ওয়াজেদ মিয়া সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিকৃতির যে চর্চা দেশে শুরু হয়েছিল, তা থেকে মুক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন এই মহান বিজ্ঞানী। কারণ তিনি অনুধাবন করেছিলেন এইটি জাতিকে বিভ্রান্তিতে ফেলার সহজ উপায় তার ইতিহাস ও সংস্কৃতিকে বিকৃত করা। আমরা তার সেই চেতনাকে লালন করে সঠিক ইতিহাসের পথে এগিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে সব সময় তার কৃতিত্ব শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবো।’

আয়োজক সংগঠনের সাভাপতি ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সভাপতিত্বে এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগের সঞ্চলনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষক সমতির সভাপতি আধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, আয়োজক সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি আলী নিয়ামত ও সাবেক অর্থ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, নিয়ম অনুযায়ী রায় পড়ে শোনানোর পরবর্তী সাত দিনের মধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হয়। নিজামী ক্ষমা না চাইলে এরপরই ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এদিকে সোমবার (০৯ মে) একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজের রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সুপ্রিম কোর্ট রেজিস্ট্রারের দপ্তর থেকে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। রায় প্রকাশের পর সেটি ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। সেখান থেকে রায়ের কপি যাবে কারাগারে।

তবে নিজামীর দল জামায়াতের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, নিজামী তার স্বজনদের জানিয়েছেন, তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাইবেন না। আল্লাহ ছাড়া আর কারও কাছে ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই আসে না। রাষ্ট্রপতির প্রাণভিক্ষার আবেদন না করলে নিজামীকে ফাঁসির রশিতে ঝুলাতে আইনত আর কোনো বাধা থাকবে না।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (০৫ মে) মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজ করে দেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এক শব্দের এই রায় ঘোষণা করেন। বেলা সাড়ে ১১টায় এজলাসে এসে প্রধান বিচারপতি শুধু বলেন, ‘ডিসমিসড’।

বেঞ্চের অপর তিন সদস্য হলেন : বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। এদিকে রিভিউ আবেদন খারিজের পর পুরোজাতি এখন নিজামীর ফাঁসির অপেক্ষায় আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

407 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ