অক্টোবর ১৯, ২০১৫ ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ

মিনায় নিহত বাংলাদেশির সংখ্যা বেড়ে ১৩৭


হজ পালন করতে গিয়ে মিনায় শয়তানকে পাথর মারার আনুষ্ঠানিকতার সময় সংঘটিত দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৭ জনে।

রোববার বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, ‘এখনো ৫৩ জন বাংলাদেশি নিখোঁজ রয়েছে। তাদের কোনো সন্ধান সৌদি আরবে বাংলাদেশের হজ মিশনের কর্মকর্তারা পাননি।’

নিহত ১৩৭ জন বাংলাদেশির মধ্যে ৯৬ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন এখনো হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর মিনায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার দুইদিন পরে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে মোট নিহতের সংখ্যা ৭৬৯ বলে জানানো হয়। গত এক দশকের মধ্যে হজে এটাই ছিল সব চেয়ে বড় দুর্ঘটনা।

কিন্তু সৌদি আরবের এই তথ্য হজে অংশ নেয়া অনেক দেশই বিশ্বাস করতে পারেনি। এর মধ্যে ইরান অভিযোগ করে বলছে, মৃতের সংখ্যা লুকিয়েছে সৌদি আরব। তারা হজ অনুষ্ঠানে দেশটির বিরুদ্ধে অযোগ্যতা ও অব্যবস্থাপনার অভিযোগ আনে এবং জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে আগামীতে হজ অনুষ্ঠানের দাবি জানায়।

তবে সৌদি আরব তাদের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, আগামীতে তারাই হজ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে। কেননা, এর সঙ্গে দেশটির সার্বভৌমত্ব জড়িত। ইরানকে হজ নিয়ে রাজনীতি না করারও আহ্বান জানিয়েছে দেশটি।

ইরান বলছে, মিনায় পদদলিত হয়ে অন্তত ৩০০০ হাজি মারা গেছে।

এদিকে বিশ্বের ৪৩টি দেশ হজে তাদের নিহতের যে সংখ্যা প্রকাশ করেছে তা যোগ করলে নিহতের সংখ্যা ২০০০ ছাড়িয়ে যায়।

এর আগে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ জানিয়েছিলেন, ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত নিহতদের মধ্যে ৫৪ জনকে সৌদি আরবে দাফন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

260 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ