ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৭ ২:৪৪ অপরাহ্ণ

আদালতের কাছে বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি – খাদিজার


হত্যাচেষ্টা মামলায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা (বহিষ্কৃত) বদরুল আলমের বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস।

সাক্ষ্যগ্রহণ  শেষে এ মামলার যুক্তিতর্কের শুনানির জন্য আগামী ১ মার্চ দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত।

রোববার দুপুরে সিলেট মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো এ তারিখ নির্ধারণ করেন। এ সময় মামলার একমাত্র আসামি বদরুল আলম আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বদরুলের চাপাতির আঘাতে গুরুতর আহত হওয়ার ৩ মাস ২২ দিন পর রোববার সকাল ১০টা ৪০মিনিটে হামলাকারীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে সিলেট মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির হন খাদিজা। আদালতে বিচারকের সামনে বদরুলকে চিহ্নিত করে তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেন তিনি। এসময় তার বাবা-মা ও ভাই সঙ্গে ছিলেন।

এর আগে খাদিজাকে হত্যাচেষ্টা মামলার একমাত্র আসামি বদরুলকে সকাল ১০টায় সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালতের কারাগারে আনা হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সাভার পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপি) প্রায় তিন মাস চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে নিজ বাড়ি সিলেটের আউশায় ফিরেন খাদিজা আক্তার নার্গিস।

গত বছরের ৩ অক্টোবর সিলেট এমসি কলেজে পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার সময় বদরুল আলমের হামলার শিকার হন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা। গুরুতর আহত অবস্থায় খাদিজাকে প্রথমে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। স্কয়ারে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর তার অবস্থার উন্নতি হলে গত ২৮ নভেম্বর খাদিজাকে সিআরপিতে ভর্তি করা হয়।

অভিযুক্ত বদরুল আলম শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক ছিলেন। ঘটনার পর তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ও ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ