নভেম্বর ১, ২০১৬ ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ

নেই ডিগ্রি তারপরও ডেন্টাল ডাক্তার, কুলাউড়ায় ডেন্টাল চেম্বার খুলে রমরমা ব্যবসা (ভিডিও সহ )


ডেস্ক সংবাদ :: দন্ত চিকিৎসার নামে কুলাউড়ায় চলছে রমরমা ব্যবসা। কুলাউড়ায় বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি চেম্বার এর নামে ক্লিনিক থাকলেও তার কোনওটিই আসল নয়। অভিযোগ রয়েছে, ডিগ্রি নেই কিন্তু তারপরও অনেকই নিজেকে ডাক্তার, ডেন্টিস্ট, ডেন্টাল সার্জন, কনসালটেন্ট পরিচয় দিয়ে কিংবা ভুয়া সনদ নিয়ে ক্লিনিক খুলে রমরমা ব্যবসা করছেন।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, এসব হাতুড়ে ডাক্তারের অপচিকিৎসার কারণে অনেকেই জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়াসহ জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা উচিত।

সরেজমিন কুলাউড়া শহরের ঔষদঘর মার্কেট সামনে গিয়ে দেখা যায় ‘ মবশ্বির ডেন্টাল চেম্বার’ নামের একটি ডেন্টাল ক্লিনিক । এই ক্লিনিকে বসেন ডাক্তার মো. আশফাক আহমদ, ডি.ডি.টি  ,আফ , টি আরও রয়েছে নানা পদবি।

untitled-2-jpgzzxxxx

মার্কেটের নিচ তলায় কয়েক বছর আগে ক্লিনিকটি গড়ে উঠে। ক্লিনিকটির ভেতরে গিয়ে দেখা গেছে এক রোগীর দাঁতের চিকিৎসা করছেন এই চিকিৎসক। বাইরে অপেক্ষা করছেন আরও দুজন। তারা জানেন না, আশফাক প্রকৃত ডাক্তার নাকি ভুয়া। আধাঘণ্টা অপেক্ষা পর ‘ডা. আশফাক’ এর সঙ্গে কথা হয়।

কি কি চিকিৎসা সেবা দেন- জানতে চাইলে বলেন, ডেন্টাল ক্রাউন , ওরাল সার্জারি,  ‘স্থায়ী ও অস্থায়ী  ফিলিং, লাইট কিউর মেশিনে ফিলিং, পলিসিং, আকাঁ-বাঁকা দাঁত সোজা করা, দাঁত উঠানো, দাঁত বাধানো, রুট ক্যানেল, সিস্ট অপারেশনসহ অন্যান্য রোগের চিকিৎসা করেন।

ccvvv

ভিজিটিং কাডে লেখা অনুযায়ী ডেন্টাল ডাক্তার বা সার্জন  সম্পর্কে জানতে চাইলে আশফাক বলেন, ‘ডেন্টাল সার্জন হচ্ছে দাঁতের ছোট ছোট যে কাজগুলো করা হয় তাই সার্জারি। আর যে এ কাজ করেন সেই সার্জন।’

ডিগ্রি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনেক গুলো ডিপ্লোমা আছে তার অভিজ্ঞতা থেকে চিকিৎসা করে থাকেন ।

আসুন দেখে নিই কারা কারা নিজের নামের আগে ডাক্তার পদবী ব্যবহার করতে পারেন ?

বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল অ্যাক্ট ২০১০(২০, ডিসেম্বর ২০১০-এ প্রকাশিত গেজেট) এর ধারা ২২(১) ও ২৯ (১) এর আওতায় গইইঝ/ইউঝ বাদে অন্য চিকিৎসকদের নামের আগে ডা. (ডাক্তার) পদবী ও নামের পরে ডিগ্রী ব্যবহার অপরাধ ।

* ন্যূনতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যতীত অন্য কেউ তাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবী লিখতে পারবেন না। তাও আবার তাকে বিএমডিসি’র রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটানো শাস্তি যোগ্য অপরাধ

আশফাকের এমন ব্যাখ্যায়  বোঝার আর বাকি থাকে না তিনি ‘প্রকৃত ডাক্তার নাকি ডাক্তার সেজে প্রতারণা করছেন’।

শুধু  মবশ্বির ডেন্টাল চেম্বার নয় , শহরের দক্ষিণ বাজার পাওয়া গেল ‘পাল ডেন্টাল কেয়ার নামের আরও একটি ক্লিনিক। এখানে ডাক্তার হেমন্ত চন্দ্র পাল রোগী দেখেন।

dddffff

তিনিও একি অবস্তায় রমরমা বাণিজ্য করে আসেন , ডাক্তার হেমন্ত চন্দ্র পাল কাছে বিডিএস ডিগ্রি সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, নিনি আমাদের জানান বিডিএস ডিগ্রি নেই । কিন্তু দিব্বি ডাক্তার বলে পরিচয় দিয়ে আসছেন ।

এদিকে বিএমডিসির আইনের ২২ (১) ধারায় বলা হয়েছে, নিবন্ধন ব্যতীত অ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা নিষিদ্ধ। অন্য কোনো আইনে যা কিছু থাকুক না কেনো এ আইনের অধীনে নিবন্ধন ব্যতীত কেউ নিজেকে মেডিকেল চিকিৎসক বা ডেন্টাল চিকিৎসক বলে পরিচয় প্রদান করতে পারবে না। কোনো ব্যক্তি এ ধারা লংঘন করলে ৩ বছরের কারাদণ্ড অথবা ১ লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে।

দেখুন ভিডিও টি

   cxc

নিউজটি শেয়ার করুন

18895 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ