জানুয়ারি ৪, ২০১৮ ৮:৪০ অপরাহ্ণ

কুলাউড়ায় সেচ কাজে বাঁধা। বোরো চাষ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা


কুলাউড়া প্রতিনিধি ঃ কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের জনৈক দুলন দত্ত ব্যক্তিস্বার্থে তাজপুর সেচ প্রকল্পের সেচ কাজে বিভিন্নভাবে বাঁধা প্রদান করে প্রকল্পের আওতাধীন সিংরা উলি বিলের শত শত একরের বোরো চাষ ক্ষতিগ্রস্থ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় ইউএনও পুলিশকে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।
তাজপুর সেচ প্রকল্পের ম্যানেজার শ্রীকান্ত দে ইউএনও’র কাছে লিখিত অভিযোগে জানান ২০১০ সালে তৎকালীন জেলা প্রশাসকের সার্বিক সহযোগিতায় বিএডিসির অর্থায়নে কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের সিংরা উলি বিলে কৃষকদের বোরো ধান চাষের জন্য মনু নদীতে বিদ্যুৎ চালিত একটি ৫ কিউসেক অগভীর সেচ পাম্প (এলএলপি) স্থাপন করা হয়। উক্ত পাম্প স্থাপনের পর থেকে তাজপুর গ্রামের দুলন দত্ত ও তার সহযোগিরা উক্ত প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের বোরো চাষ ব্যাহত করার জন্য নানা চক্রান্ত শুরু করে ও ২০১৩ সালের মার্চ মাসে প্রকল্পের ১০ কেভি ৩টি ট্রান্সফরমার চুরি,২০১৪ সালে পানি সরবরাহের পাইপ লাইন কেটে পাম্প ঘর ভাঙচুর করে পানি সেচে বাধা প্রদান, ২০১৪ ও ১৫ সালে পাম্প চালিত অবস্থায় ২টি মিটার নষ্টসহ একের পর এক চক্রান্ত করে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে প্রকল্পের উন্নয়নমুলক কাজ পাইপ লাইন নির্মাণে বাঁধা প্রদান ও চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না পেয়ে চলতি মৌসুমে ঐ চক্রটি প্রকল্পের ক্ষতি সাধনের লক্ষ্যে বিএডিসি মৌলভীবাজারে সেচ পাম্পের আবেদন করে ব্যর্থ হয়ে বিএডিসি প্রকল্পের পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্দোগে একটি ছোট সেচপাম্প স্থাপন করে প্রকল্পের সরকারি নালা অবৈধভাবে ব্যবহার করে সেচ কাজে প্রতিন্ধকতার সৃষ্টি করে। এব্যাপারে তাজপুর সেচ প্রকল্পের ম্যানেজার শ্রীকান্ত দে গত ২৮ ডিসেম্বর ইউএনও’র কাছে লিখিত অভিযোগ দিলে ইউএনও কুলাউড়া থানা পুলিশকে তদন্ত সাপেক্ষে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেন। ইউএনওর নির্দেশে বৃহস্পতিবার কুলাউড়া থানার এসআই কানাই লাল চক্রবর্তী সরেজমিনে উক্ত অভিযোগ তদন্ত করেছেন বলে জানা গেছে। কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌঃ মোঃ গোলাম রাব্বি জানান, পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

135 বার মোট পড়া হয়েছে সংবাদটি
error: আপনি কি খারাপ লোক ? কপি করছেন কেন ?? হাহাহ